1. faysal.rakib2020@gmail.com : admin :
  2. sarderamun830@gmail.com : Sarder Alamin : Alamin Sarder
বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০৭:০৪ অপরাহ্ন
নোটিশ :
বিভিন্ন জেলা,উপজেলা-থানা,পৈারসভা,কলেজ ও ইউনিয়ন পর্যায় সংবাদকর্মী আবশ্যক ।

বরিশালে সরকারী খাল ভরাট করে রাস্তা নির্মাণ!

  • প্রকাশিত : সোমবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২১
  • ২২ 0 বার সংবাদি দেখেছে

গৌরনদী প্রতিনিধি :: বরিশালের গৌরনদী পৌরসভার দিয়াশুর মহল্লার শত বছরের একটি পুরনো সরকারি খাল ভরাট করে নিজেদের বাড়ির জন্য রাস্তা নির্মাণ করেছে একটি প্রভাবশালী মহল। খালের মধ্যে বাঁধ দেওয়ায় জলাবদ্ধতা তৈরী হয়ে পানিতে ডুবে আমন ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। চরম দূর্ভোগে পরেছেন এলাকাবাসী। তারা নিরুপায় হয়ে জলাবদ্ধতা নিরসনসহ খাল ভরাটকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত আবেদন করেছেন।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, দিয়াশুর গ্রামের চৌকিদার বাড়ি থেকে বড় খাল (মোল্লারখাল) ভায়া বাংলা বাজার সরকারি খালটি শত বছরের পুরানো। গত কয়েকদিন পূর্বে সরকারি খালের মধ্যবর্তীস্থানে দিয়াশুর গ্রামের মৃত হাতেম আলী হাওলাদারের ছেলে সুলতান হাওলাদার, দুলাল হাওলাদার ও সাইদুল হাওলাদার তাদের বাড়ির সামনে দুইশ’ ফুট বাঁধ নির্মান করে বালু ভরাট করেন। ফলে গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে এলাকায় জলাবদ্ধা সৃষ্টি হয়ে প্রায় দুই শ’ একর জমির আমন ধান পানিতে তলিয়ে গেছে। পাশাপাশি কালনা ও দিয়াশুর গ্রামের প্রায় শতাধিক পরিবার জলাবদ্ধতায় চরম ভোগান্তিতে পরেছেন। ১০টি মুরগীর ফার্ম ও একাধিক গরুর ফার্মে পানি ঢুকে গৃহস্থরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন। এছাড়া দিয়াশুর ভোলাই মল্লিক বাড়ি থেকে বাংলা বাজার পর্যন্ত কার্পেটিং সড়কটি পানিতে তলিয়ে বিভিন্নস্থানে ভেঙ্গে গেছে । কালনা গ্রামের আনোয়ার হোসেন ওরফে আবু আকন অভিযোগ করেন, বালু ভরাটের কারণে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হওয়ায় মোর ২ একর জমির ধান নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ভাগ্যে কি আছে জানিনা। একই গ্রামের লালচান ফকির জানান, খাল ভরাটের কারণে মাঠে মারা গেছি। মোর ৫ বিঘা জমির ফলন্ত ধান নষ্ট হয়েছে। একই অভিযোগ অসংখ্য মানুষের। তারা পানি নিষ্কাশন সহ খাল ভরাটকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত আবেদন করেছেন।

খাল দখলের অভিযোগ অস্বীকার করে অভিযুক্ত দুলাল হাওলাদার বলেন, আমরা আমাদের পূর্ব পুরুষদের ব্যক্তি মালিকানার সম্পত্তিতে বাঁধ দিয়ে ভরাট করেছি। স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর ইখতিয়ার হাওলাদার অবৈধভাবে সরকারি খাল দখলের কথা স্বীকার করে বলেন, আমি খালটি ভরাট করতে নিষেধ করেছি। কিন্তু তারা শোনেননি। খাল ভরাটের ফলে কৃষির ব্যাপক ক্ষতি ও মানুষের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

এ ব্যাপারে গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিপিন চন্দ্র বিশ্বাষ এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, কৃষকের ফসল রক্ষার জন্য পানি নিষ্কাশনসহ খাল ভরাটকারীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

‍এই ক্যাটাগরির ‍আরো সংবাদ