1. faysal.rakib2020@gmail.com : admin :
  2. sarderamun830@gmail.com : Sarder Alamin : Alamin Sarder
সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০১:০৭ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
বিভিন্ন জেলা,উপজেলা-থানা,পৈারসভা,কলেজ ও ইউনিয়ন পর্যায় সংবাদকর্মী আবশ্যক ।

কোস্টগার্ডের যৌথ অভিযানে আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদ সহ ৬ ডাকাত আটক

  • প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ৫ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ১৪ 0 বার সংবাদি দেখেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক // বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের অভিযানে দেশী-বিদেশী পিস্তল, ইয়াবা মদসহ ছয়জন ডাকাতকে আটক করা হয়েছে। মঙ্গলবার (৩জানুয়ারি) সকালে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড সদর দপ্তর (ঢাকা আগারগাঁও) মিডিয়া কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আব্দুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান,গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, গত(২ জানুয়ারি) শাহপরী দ্বীপ সংলগ্ন নাফ নদীর মোহনায় একটি সক্রিয় অস্ত্রধারী ডাকাতদল ফিশিং বোটে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে।

বাংলাদেশ কোস্টগার্ড স্টেশন সেন্টমার্টিন কর্তৃক নাফ নদীর মোহনায় একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযান চলাকালীন কোস্টগার্ডের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাতদল তাদের বোট নিয়ে নাফ নদীর মোহনা হতে টেকনাফের দিকে দ্রুত সরে যাওয়ার চেষ্টা করতে থাকে।

স্টেশন সেন্টমার্টিন কর্তৃক ডাকাত দলকে ধরতে ধাওয়া অব্যাহত রেখে কোস্ট গার্ড স্টেশন টেকনাফকে উক্ত তথ্যটি অবগত করা হয়। স্টেশন টেকনাফ হতে চৌকস আরেকটি আভিযানিক দল বোটটির পিছু নেয় এবং ধাওয়া করলে এক পর্যায়ে স্পীড বোটটি টেকনাফ থানাধীন রঙ্গিখালীর নিকটবর্তী খড়ের দ্বীপে ডাকাত সদস্যদেরকে নামিয়ে দ্রুত মায়ানমারের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে।

এসময় ডাকাত সদস্যরা দ্বীপের বনের মধ্যে লুকিয়ে যায়। পরবর্তীতে কোস্টগার্ড স্টেশান টেকনাফ ও সেন্টমার্টিনের আভিযানিক দল দুটি যৌথভাবে দ্বীপটি চারদিক থেকে ঘিরে ফেলে।

অভিযান চলাকালীন কোস্টগার্ড কর্তৃক ডাকাত দলের মূল আস্তানা ঘেরাও করে ০৬ জন সশস্ত্র ডাকাত সদস্যকে আটক করা হয়। উক্ত ডাকাত সদস্যদের তথ্যমতে খড়ের দ্বীপের বনের মধ্যে চিরুণী অভিযান পরিচালনা করে বিদেশী পিস্তল ০২ টি, একনলা বন্দুক ০৩ টি, এলজি ০২ টি, শর্ট গান ০১ টি, দেশী পিস্তল ০৬ টি, পিস্তলের ম্যাগাজিন ০৪ টি, তাজা গোলা ৪৫০ রাউন্ড, ফাঁকা গোলা ৩৬ রাউন্ড, রামদা ০৪ টি, ইয়াবা ২০,০০০ পিস, বিদেশী মদ ২১ বোতল, বিয়ার ৫৫১ ক্যান, ডাকাতি কাজে ব্যবহৃত পোষাক ০৭ সেট, হ্যান্ডকাফ ০১ টি, ল্যান্ড ফোন ০১ টি, বাটন মোবাইল ০৪ টি জব্দ করা হয়।

তিনি আরও বলেন, উক্ত দ্বীপটি টেকনাফ হতে দূরবর্তী, বিচ্ছিন্ন এবং জনশূণ্য হওয়ায় এই সুযোগটি কাজে লাগিয়ে একটি সংঘবদ্ধ চক্র দীর্ঘদিন যাবত ডাকাতি, মাদকদ্রব্য ও মানব পাচারসহ বিভিন্ন ধরনের অপকর্ম চালিয়ে আসছিল বলে কোস্ট গার্ডের কাছে গোয়েন্দা তথ্য ছিল।

উক্ত গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে কোস্ট গার্ড স্টেশন টেকনাফ ও সেন্টমার্টিন যৌথভাবে দীর্ঘ ০৯ ঘন্টার শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান পরিচালনা করে বিপুল পরিমান অস্ত্র, গোলাবারুদ ও মাদকদ্রব্যসহ ০৬ জন ডাকাত সদস্যকে আটক করতে সক্ষম হয়।

বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের এখতিয়ারভুক্ত এলাকাসমূহে আইন শৃঙ্খলা ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন এবং জননিরাপত্তার পাশাপাশি জলদস্যুতা, বন-দস্যুতা ও মৎস্য সম্পদ রক্ষায় কোস্ট গার্ডের জিরোটলারেন্স নীতি অবলম্বন করে নিয়মিত অভিযান অব্যাহত আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

‍এই ক্যাটাগরির ‍আরো সংবাদ