1. faysal.rakib2020@gmail.com : admin :
  2. sarderamun830@gmail.com : Sarder Alamin : Alamin Sarder
বৃহস্পতিবার, ৩০ নভেম্বর ২০২৩, ০৭:৫১ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
বিভিন্ন জেলা,উপজেলা-থানা,পৈারসভা,কলেজ ও ইউনিয়ন পর্যায় সংবাদকর্মী আবশ্যক ।
সংবাদ শিরনাম :
বিএনপি নেতার বাস চলার অভিযোগ, বিক্ষোভ নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ! বাউফলে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা রাশেদুল হাসান বাউফলে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে যুবলীগ নেতা সুপ্ত এস এম ইকবালের স্বরণে দোয়া ও মোনাজাত কেন্দ্রিয় যুবলীগ নেতা রাশেদুল হাসান সুপ্ত :প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশকে বিশ্ব আজ সম্মানের চোখে দেখে বরিশালে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে জখমের অভিযোগ ভান্ডারিয়ায় জমি বিরোধে বাবা-ছেলেকে কুপিয়ে জখমের অভিযোগ মেহেন্দিগঞ্জের দড়িরচর খাজুরিয়ার আমিরুল বৈধভাবে বিদেশ গিয়েও প্রতারণার শিকার! মেহেন্দিগঞ্জের দরিচর খাজুরিয়ায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচার ১জন ট্যালেন্টপুলেসহ বৃত্তি পেল এআরএস মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ৪ শিক্ষার্থী

শীতকালীন সবজিতে স্বস্তি ফিরেছে বাজারে

  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ৬৩ 0 সংবাদ টি পড়েছেন
নিজস্ব প্রতিবেদক // বাজারে ক্রমশ বাড়ছে শীতকালীন সবজির সরবরাহ। ফলে স্বস্তি ফিরেছে ক্রেতাদের মাঝে। সামনের দিনগুলোতে সবজির সরবরাহ আরও বাড়বে, এতে দাম আরও কমবে বলে আশা করছেন ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়ই।

শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) সকালে রাজধানীর বিভিন্ন কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা যায়, প্রতি কেজি পুরোনো আলু ২৮ টাকা, বেগুন ৫০ টাকা, পটল, ৫০, শসা ৮০-১০০ টাকা, শিম ৫০ টাকা, বরবটি ৮০ টাকা, ধনিয়াপাতা ১২০ টাকা, ঢেঁড়স ৬০ টাকা, পেঁপে ৩০ টাকা, করলা ৫০-৬০ টাকা, উচ্ছে ৮০ টাকা, মূলা ৩০-৪০ টাকা, গাজর ৮০ টাকা, টমেটো ১০০-১২০ টাকা, ব্রকলি ৮০-১০০ টাকা ও পেঁয়াজ পাতা ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া প্রতি পিস লাউ ৬০ টাকা, ফুলকপি ৩০ টাকা, বাঁধাকপি ৪০ টাকা করে এবং লালশাক প্রতি আঁটি ১০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে।

খুচরা বিক্রেতারা জানায়, পাইকারি বাজারের দামের ওপর তাদের নির্ভর করতে হয়। পাইকারি বাজারে কম দাম থাকলে তারা কমেই বিক্রি করেন সবজি। বর্তমানে বাজারে সবজির সরবরাহ পর্যাপ্ত থাকায় দাম কিছুটা কমেছে।

অন্যদিকে ক্রেতারা বলছেন, কিছুটা স্বস্তি মিললেও সবজির দাম আরও কমা উচিত। দেশে প্রচুর শীতকালীন সবজি চাষ হয়। এরপরও কেনো দাম আরও কমছে না, প্রশ্ন ক্রেতাদের।

এদিকে মাস তিনেক আগেও যে কাঁচামরিচ ৩০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়েছিলো সেই মরিচের দাম এখন মাত্র ৩০ টাকা। রাজধানীর বাইরে দাম আরও কম। তাও আবার ডেকে ডেকে কাঁচা মরিচ বিক্রি করছেন বিক্রেতারা। যেখানে কয়েক মাস আগে মানুষ একশ গ্রাম মরিচ কিনতে পারত না সেখানে এখন দোকানিরাই জোর করে এক কেজি মরিচ দিয়ে দিচ্ছেন।

সবজির পাশাপাশি সপ্তাহের ব্যবধানে কমেছে ব্রয়লার মুরগী ও ডিমের দামও। প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগী বিক্রি হচ্ছে ১৫০-১৬০ টাকায়। ডিম বিক্রি হচ্ছে প্রতি ডজন ১২০-১৩০ টাকায়।

তবে বাজারে ফের উত্তাপ ছড়াচ্ছে চালের দাম। সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে মোটাসহ প্রায় সব চালের দাম। মোটা চাল ন্যূনতম কেজি প্রতি বেড়েছে ২ টাকা। আর মাঝারি ও চিকন চালের দাম বেড়েছে অন্তত ২-৫ টাকা। দোকানিদের দেয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, বাজারে মোটা পাইজাম চাল বিক্রি হচ্ছে ৫৬-৬০ টাকা। মাঝারি মানের মিনিকেট ৭০-৭২ টাকা ও সরু নাজির চাল ৭৫-৮৫ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে বাজারে গত এক মাসে তিন দফা বেড়ে আটার দাম প্রতি কেজি ৭৫ টাকায় ঠেকেছে। বাজারে দুই কেজি ওজনের প্যাকেটজাত আটা বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকায়। খোলা আটা নিলে পাওয়া যাচ্ছে ৫-১০ টাকা কমে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

‍এই ক্যাটাগরির ‍আরো সংবাদ