1. faysal.rakib2020@gmail.com : admin :
  2. sarderamun830@gmail.com : Sarder Alamin : Alamin Sarder
বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:২৮ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
বিভিন্ন জেলা,উপজেলা-থানা,পৈারসভা,কলেজ ও ইউনিয়ন পর্যায় সংবাদকর্মী আবশ্যক ।
সংবাদ শিরনাম :
চরকাউয়া খেয়াঘাটে অপ্রতিরোধ্য জুয়ার আসর ! বরিশালে ’’শিকদার এক্সপ্রেস’ কুরিয়ার এন্ড পার্সেল সার্ভিসের শুভ উদ্বোধন বরিশালে মাতৃছায়া মানব কল্যাণ সংস্থার ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী ববির বহিষ্কৃত ছাত্র বাকীর খুটির জোর কোথায়, অভিযোগের তীর প্রক্টরের দিকে ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে খালিদ কে দেখতে চাই বাকেরগঞ্জবাসী বদরুল আলম’কে ভাইস চেয়ারম্যান পদে পেতে চায় উপজেলাবাসী জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত আসন, বরিশাল বিভাগ থেকে আলোচনায় যারা কথিত ছাত্রলীগ নেতা জুবায়েরের খুটির জোর কোথায়! বিদ্যুৎ বিলের নামে চাঁদা কালেকশন হিজলায় নৌকার সমর্থকের হাতের রগ কাটার পর বসতঘরে অগ্নিসংযোগ হিজলা-মেহেন্দিগঞ্জ নৌকার কর্মী-সমর্থকদের উপর অব্যাহত হামলা-আহত ২০-২৫!

যৌতুক না পেয়ে চুল কেটে বাড়ি থেকে বের করে দেয়া হয় হাছিনাকে

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২২ মার্চ, ২০২২
  • ৪৯ 0 সংবাদ টি পড়েছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক // যৌতুকের দাবিকৃত চাহিদা অনুযায়ী টাকা না দেওয়ায় গৃহবধুর চুল কেটে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছেন স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন। নির্যাতনের বিচার চেয়ে স্থানীয় থানা পুলিশের দারস্থ হলেও পুলিশ মামলা নেয়নি। নিরুপায় হয়ে ওই গৃহবধূ আদালতে মামলা দায়ে করেছেন।

মামলা করার প্রায় ১ মাস পার হলেও কোনো বিচার না পাওয়ায় নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়েছেন ভুক্তভোগী পরিবার। অন্যদিকে পুলিশ বলছে, আদালত থেকে মামলার বিষয়ে থানায় কোনো নির্দেশনা আসেনি।

জানা যায়, গত ২০১৫ সালের ২৩ জানুয়ারী নওগাঁর রানিনগর উপজেলার মধুপুর গ্রামের রেজাউল ইসলামের ছেলে ফিরোজ হোসেন পাশের ভান্ডারপুর গ্রামের হোসেন আলীর মেয়ে হাছিনা বেগমকে (২৬) বিয়ে করেন। বিয়ের দিন জামাতাকে চুক্তি অনুযায়ী ব্যবসা করার জন্য ১ লাখ টাকা যৌতুক হিসেবে দেন হাসিনার বাবা। কিছুদিন পর থেকেই ফিরোজ হোসেন আরও ১ লাখ টাকা এনে দেয়ার জন্য তার স্ত্রী হাছিনা বেগমকে চাপ দিতে থাকেন। হাসিনা দাবি মেনে না নেওয়ায় স্বামী ও স্বামীর পরিবারের লোকজন তার ওপর নির্যাতন শুরু করে। এক পর্যায়ে গত ২২ ফেব্রুয়ারি স্বামী ফিরোজ হোসেনের সাথে হাসিনার চরম বাকবিতণ্ডা হয়। প্রতিপক্ষ হিসেবে মামা শ্বশুর ফজলু ও খালা শাশুড়ি শেফালী বেগম হাসিনাকে নির্যাতন করে।

নির্যাতনকারীরা হাছিনাকে এলোপাতারি মারপিট করলে একপর্যায়ে সে অজ্ঞান হয়ে পরে। এসময় প্রকাশ্যে স্বামী ফিরোজ হোসেনসহ অন্যরা কাঁচি দিয়ে হাসিনার চুল কেটে দেয়। পরে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়া হয়। তিনি এখন দরিদ্র বাবার বাড়িতে বসবাস করছেন।

নির্যাতনের শিকার হাসিনা জানান, ঘটনার পরদিন সকালে রানিনগর থানায় মামলা করতে গেলে থানা পুলিশ মামলা বা অভিযোগ নেয়নি। পরে নিরুপায় হয়ে ২৮ ফেব্রুয়ারি নওগাঁর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইবুনাল আদালত-১ এ মামলা দায়ের করেন। তবে মামলার চেষ্টার কথা অস্বীকার করেন রানিনগর থানার ওসি শাহিন আকন্দ। তিনি বলেন, গৃহবধূ হাসিনা বা তার পরিবারের কেউ থানায় অভিযোগ নিয়ে আসেনি।

এদিকে গৃহবধুর বাবা হোসেন আলী বলেন, মামলা দায়ের করা হলেও আসামিকে করা গ্রেফতার হয়নি। তবে রানিনগর থানার ওসি জানান, আদালতে করা মামলার ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা বা তদন্তের নির্দেশনা পাননি তারা। আদালতের নির্দেশনা পেলে সে অনুযায়ী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও আশ্বাস দেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

‍এই ক্যাটাগরির ‍আরো সংবাদ