1. faysal.rakib2020@gmail.com : admin :
  2. sarderamun830@gmail.com : Sarder Alamin : Alamin Sarder
সোমবার, ২০ জুন ২০২২, ১০:১৪ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
বিভিন্ন জেলা,উপজেলা-থানা,পৈারসভা,কলেজ ও ইউনিয়ন পর্যায় সংবাদকর্মী আবশ্যক ।

রাংঙ্গামাটির গুলশাখালীতে ক্লিনিকসহ স্থাপনা নির্মাণে বাধা দেয়ার অভিযোগ, প্রাননাশের হুমকি

  • প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর, ২০২১
  • ২০ 0 বার সংবাদি দেখেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক ::পার্বত রাংঙ্গামাটি জেলার লংগদু উপজেলার গুলশাখালী ইউনিয়নের ব্যবসায়ী ও রাজনীতিবিদ মোঃ আব্দুল মালেক দুলাল ইউনিয়নের বিভিন্ন জনসেবা মূলক কাজ করেন, ইউনিয়নের গরীব অসহায় মানুষের জন্য সব সময় কাজ করেন আব্দুল মালেক দুলাল নুরুন নাহার এগ্র্যো ডেইরী ফার্ম,নুরুন নাহার মৎস্য প্রকল্প, নুরুন নাহার পোল্টি ফার্ম,রাঙ্গামাটি পাহাড়ি চিকিৎসালয় ক্লিনিক, স্বপ্নছোয়া স্পোর্টিং ক্লাবসহ বিভিন্ন ব্যাবসায়ী ও জনসেবা মূলক কাজ করে থাকেন আব্দুল মালেক দুলাল।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে,আব্দুল মালেক দুলাল তার নিজের জমি গুলশাখালী ইউনিয়নে বিগত চার বছর যাবত একটি আধুনিক ক্লিনিক প্রতিষ্ঠা করার জন্য কাজ করতে চায় যার নাম রাঙ্গামাটি পাহাড়ি চিকিৎসালয় ক্লিনিক নির্মাণ করতে গেলে স্থানীয় প্রভাবশালীদের বাধার কারনে করতে পারে না। গত ২০-১০-২০২১ তারিখে তার নির্মাণাধীন ভবন পূর্ননির্মান করতে গেলে একই এলাকার ( ১) আঃ হালিম, (২)মোঃ এরসাদ আলী(এরসাদ মাস্টার) (৩)আঃ গনী (৪) মরিয়ম (৫) সুজন কামালসহ ৮/১০ জন অজ্ঞাতনামা লোক বাঁধা প্রদান করেন।
আরো জানা গেছে, আব্দুল মালেক দুলাল একজন সাংস্কৃতিক মনা ও জনদরদী ও সাদা মনের মানুষ পার্বত্য এলাকার গরিব অসহায় মানুষের কথা চিন্তা করে চার বছর আগে একটি আধুনিক ক্লিনিক প্রতিষ্ঠা করার জন্য কাজ করেন।চলতি মাসের ২০ তারিখ ক্লিনিক এর কাজ করতে গেলে উক্ত ব্যাক্তিরা বাধা প্রদান করে, এবং স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ও থানার পুলিশ নিয়ে ক্লিনিক এর কাজে বাধা দিলে কাজ বন্ধ করে দেয়া হয়। এবং আঃ হালিম, মরিয়ম ও এরসাদ মাস্টার হুমকি দিয়ে বলেন এখানে কোন কাজ হবে না কাজ করলে প্রানে মেরে ফেলবো।

এব্যাপারে আব্দুল মালেক দুলাল বলেন আমার স্ত্রীর নামে জমি সেই জমিতে আমি আমার এলাকার সাধারণ গরিব অসহায় মানুষের কথা চিন্তা করে একটি আধুনিক ক্লিনিক নির্মাণ করতে গেলে আমার ক্লিনিক এর কাজে বাধা প্রদান করলো কিন্তু কেনো ? তিনি আরও বলেন এই জমি নিয়ে এর আগে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা পরিষদের সদস্য মোঃ আব্দুল রহিম বিভিন্ন রকম শালিস মিমাংসা করার চেষ্টা করে কিন্তু এরসাদ, মরিয়ম, হালিম কোন শালিস মিমাংসার তোয়াক্কা করে নাই তাড়া চেয়ারম্যান এর শালিস অমান্য করে জনসার্থের জন্য নির্মাণ করা ক্লিনিক প্রতিষ্ঠা করতে দিতেছে না।
আব্দুল মালেক দুলাল জানান আগামী ইউপি নির্বাচনে আমি গুলশাখালী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবো তাই আমার নির্বাচন কে বাধা দেয়া ও সামাজিক ভাবে ছোট করার জন্য এরা এসব ষড়যন্ত্রমূলক কাজ করে বেড়াচ্ছে। আমি সুষ্ঠ বিচার চাই এবং আমার পরিবার এখন হুমকির মুখে ।

আমি প্রশাসন ও সমাজের সকলের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

 

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

‍এই ক্যাটাগরির ‍আরো সংবাদ